ছবিক্যাপশনঃ ভোলাহাটে কৃষি কর্মকর্তা শরিফুল ইসলামের নিজ উদ্যোগে কৃষকদের মাঝে সবজি বীজ ও চারা বিতরণ।

স্টাফ রিপোরর্টারঃ দিন যত আসছে করোনার ভয়াবহতা ততই ভয়ঙ্কার হচ্ছে। মানুষের আয় কমবে। এ ভয়াবহতাকে মোকাবেলা করতে কৃষির ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখতে পারে। এদিকে মানবতার দূত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন প্রতি ইঞ্চি জায়গা ব্যবহার ও পতিত জমি ব্যবহারের। এরি ধারাবাহিকতায় নিজস্ব অর্থায়ণে সবজি চারা ও বীজ নিয়ে কৃষকের দ্বারে দ্বারে ছুটে চলা ভোলাহাট উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শরিফুল ইসলামের।
আসছে দিনে মানুষের র্দূভিক্ষ মোকাবেলায় অর্থাভাবে প্রান্তিক কৃষকেরা যাতে সবজির অভাব না পায় সে চিন্তা থেকে কৃষকদের মাঝে সবজি চারা ও বীজ বিতরণ সমপোযোগি পদক্ষেপ নিলেন কৃষি কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম। নিজ চিন্তায় ও অর্থায়ণে উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের নিয়ে কৃষক/কৃষানিদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে বিতরণ করছেন বারোমাসিয়া মিষ্টি কুমড়া, বিটি বেগুণ, চিচিংগা, শশা, চালকুমড়া, বারী লাউ, বরবটি, পাট শাক, লাল শাক ও পেঁপের চারা।
সোমবার ৪ মে বেলা ১১টার দিকে বড়গাছী পশ্চিম পাড়া গ্রামে জামবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মসফিকুল ইসলাম তারার সভাপতিত্বে কৃষক কৃষানিদের মাঝে সবজি বীজ ও চারা বিতরণ করা হয়। এ সময় প্রধান অতিথি ছিলেন, ভোলাহাট উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শরিফুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন, ভোলাহাট প্রেসক্লাব সভাপতি গোলাম কবির ও বিশিষ্ট সমাজসেবক আখতারুল ইসলাম রাকিব। এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা শেখ মোঃ আল ফুহাদ, আজমুল আরেফিন, ভোলাহাট সংবাদের বার্তা সম্পাদক আলি হায়দার, জামবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ, আব্দুস সবুরসহ অন্যরা। একই দিনে বড়গাছী পশ্চিম পাড়া ও ছোট জামবাড়ীয় গ্রামে ৫০জন করে মোট ১শত জন কৃষক কৃষানির মাঝে সবজি বীজ ও চারা প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য এর পূর্বে হেলাচী গ্রামেও ৫০জনের মাঝে বীজ ও চারা বিতরণ করা হয়।
কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শরিফুল ইসলাম বলেন, এ উদ্যোগ ভোলাহাট উপজেলার চারটি ইউনিয়নে অব্যহত থাকবে। পর্যায়ক্রমে তিনিসহ তার অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ সক্রিয় ভাবে কাজ চালিয়ে যাবেন বলে নিশ্চিত করেন। তিনি আরো বলেন, এ উদ্যোগের মাধ্যমে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, পুষ্টি চাহিদা পূরণ করা, অর্থ আয়ের পথ তৈরী করা হবে আমার লক্ষ্য। এছাড়া এ উদ্যোগ নিয়ে কৃষকের দ্বারে দ্বারে পৌঁছা সম্ভাব হওয়ায় করোনার ভয়াবহতা থেকে নিজেদের সুরক্ষা রাখতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, গণজমায়েত না করা, স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা, হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকাসহ সরকারের নির্দেশনা মেনে চলার পরামর্শ দেয়া যাচ্ছে। কৃষক যদি এটি বাস্তবায়ন করেন তবে নিজেদের ও দেশের খাদ্য সংকট মোকাবিলা করা সহজ হবে বলে তিনি জানান।

কমেন্ট করুন