কপোত নবী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনার সতর্কতায় কোলাহমুক্ত শহর।এ যেন অন্য কোন শহর। ২৬ মার্চ বৃহস্পতিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জের সড়কে দু-চারটি প্রাইভেটকার ও গুটিকয়েক মোটরসাইকেল ছাড়া কোন পরিবহন চোখে পড়েনি। যা চোখে পড়েছে বেশির ভাগ ছুটিতে আসা অন্য জেলা ফেরত যাত্রী।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী সড়কে অবস্থান নিয়ে আছেন। মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকার দেখলেই থামাচ্ছেন ‍পুলিশ সদস্যরা এবং জানতে চাচ্ছেন কেন বের হয়েছেন, কোথায় যাচ্ছেন? কারণ ছাড়া বের হতেও নিষেধ করছেন তারা।

আজ বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে সেনাবাহিনীর দুটো গাড়িকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের প্রধান প্রধান সড়কগুলোতে টহল দিতে দেখা গেছে।

এ ছাড়াও রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ-সোনামসজিদ মহাসড়কেও সেনাবাহিনী টহলে আছেন বলে জানিয়েছেন সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলমগীর হোসেন।

গণপরিবহনে নিষেধাজ্ঞা থাকায় বুধবার থেকেই সড়কে গণপরিবহন কম দেখা যায় চাঁপাইনবাবগঞ্জে। শহরের প্রধান সড়ক শান্তিমোড়, বিশ্বরোড, বাতেন খাঁ মোড়, পুরাতন বাজার, শিবতলা, নিমতলা, বড় ইন্দারা মোড়, ক্লাব সুপার মার্কেট এলাকা, হুজরাপুর, করনেশন রোড, ফ্যায়ার সার্ভিস মোড়সহ আরো বিভিন্নস্থানের মোড় গুলোতে মানুষের উপস্থিতি নেই বললেই চলে।

তবে সকাল থেকে যারা ঢাকা হতে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিশ্বরোড মোড়ে এসে নেমেছেন তাদের ঠাঁয় দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে যানবাহন না পাবার কারণে। যে দুএকটা অটোগাড়ী বা রিকশা চলছে তাতেই চড়া দামে ভাড়া দিয়ে নিজ গন্তব্যে ছুটছেন ঢাকা থেকে বাড়িতে আসা যাত্রীরা। অনেক যাত্রীকে পায়ে হেঁটেও যেতে দেখা গেছে।

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সতর্কতামূলক ব্যবস্থার অংশ হিসেবে সারাদেশে গণপরিবহন বন্ধ আছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসন জনসাধারণের জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন। সে সব নির্দেশনা মেনে চলতে প্রতিনিয়ত বলা হচ্ছে প্রশাসনের তরফ থেকে।

সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জিয়াউর রহমান পিপিএম জানান, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সতর্কতামূলক ভাবে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে। পুলিশ সুপার এ এইচ এম আবদুর রকিব বিপিএম পিপিএম (বার) এর নির্দেশনায় শহরে বিভিন্নস্থানে সিসি ক্যামেরা দিয়েও পরিস্থিতি সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হচ্ছে। এ ছাড়াও জেলার বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার তরফ থেকেও ততপরতা দেখা গেছে।

কমেন্ট করুন