স্টাফ রিপোর্টারঃ মহামারী করোনা থেকে মুক্তি পেতে ভোলাহাট উপজেলা প্রশাসনের দফায় দফায় মিটিং। সোমবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি মিটিংএ বসেন। মিটিংএ উপজেলা চেয়ারম্যান রাব্বুল হোসেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজিবুল আলম, ভাইস চেয়ারম্যান গরিবুল্লাহ দবির, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুল হামিদ, প্রনি সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুল্লাহ, কৃষি কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম,অফিসার ইনর্চাজ নাসিরউদ্দিন মন্ডল, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, মসফিকুল ইসলাম তারা, প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুল বারী, শিক্ষা অফিসার মিজানুর রহমান, মাধ্যামিক শিক্ষা অফিসার আব্দুর রহমান, সমাজসেবা কর্মকর্তা নাসিম উদ্দিন, উপজেলা প্রকৌশলি, আলীগ নেতা আব্দুল খালেক, তথ্য আপা, সহকারী শিক্ষা অফিসার আব্দুল গণিসহ অন্যরা।

সভায় করোনা প্রতিরোধে বিভিন্ন প্রকার আলোচনা হয়। আলোচনার পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী মাজিষ্ট্রেট রাজিবুল আলমের স্বাক্ষরিত এক জরুরী বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়, সর্বসাধারণ ও ব্যবসায়ীদের অবগতি করে সোমবার থেকে আগামী ৩১ মার্চ অথবা পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত উপজেলার সকল হোটেল, চায়ের দোকান, মার্কেট, দোকান-পাট ও হাট বন্ধ রাখার এবং একত্রে ৫জনের বেশী গণজমায়েত না করার আদেশ করা হয়। বিজ্ঞপ্তি আরো উল্লেখ করা হয়, ফার্মেসী, বালাইনাশক, সার, ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি, মুদির দোকান এবং কাঁচা বাজার এ ঘোষনার আওতামুক্ত থাকবে। আদেশ অমান্যকারিদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের করা হবে বলে জানানো হয়। এদিকে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুল হামিদ সোমবার বেলা ১১টার দিকে জানান, ভোলাহাট উপজেলায় এ পর্যন্ত মোট ৩৭জন বিদেশ ফেরত হোম কোয়ারেন্টাইনে আছে। তবে উপজেলায় করোনা ভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হয়নি বলে জানান। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নিরাপদ দূরুত্বে কোয়ারেন্টাইন ও আইসুলেশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ ছাড়া ব্যাপক লিফলেট, মাইকিং ও মাঠ পর্যায়ে স্বাস্থ্য শিক্ষা ও সেবা প্রদান অব্যহত রেখেছেন বলে জানান।

কমেন্ট করুন