অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যকার চলমান উত্তেজনার মধ্যেই ভয়াবহ বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ইরানের রাজধানী তেহরানে ইউক্রেন এয়ারলাইন্সের একটি যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্ত হয়। বিধ্বস্ত হওয়ার পরপরই এতে আগুন ধরে যায়। এসময় বোয়িং ৭৩৭ বিমানটিতে ১৮০ জন আরোহী ছিলো বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম রয়টার্স। এদের মধ্যে অল্প কিছু মানুষই জীবিত আছেন বলে জানিয়েছে ইরানি সংবাদ মাধ্যম।

এক বিবৃতিতে ইরানি সংবাদ মাধ্যম ইরনা জানায়, বুধবার সকালে তেহরানের ইমাম খোমেনি বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়নের অল্প সময় পরেই বিধ্বস্ত হয় ইউক্রেন আন্তর্জাতিক এয়ারলাইন্সের বিমানটি।

ইরানের জরুরি বিভাগের প্রধান পির হোসেইন কৌলিভান্দ জানান, ‘বিধ্বস্ত হওয়ার পরপরই এতে আগুন ধরে যায়। কিন্তু আমরা বিমানের আরোহীদের উদ্ধারে টিম পাঠিয়েছি। তবে আমরা অল্প কয়েকজন যাত্রীকে রক্ষা করতে পেরেছি।’ উদ্ধার কাজ এখনও চলছে বলে জানা গেছে।

বুধবার সকালে ১৮০ জন আরোহী নিয়ে বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের দিকে যাত্রা করেছিলো। এসময় বিমানটিতে মোট ১৭০ জন যাত্রী ও ১০ ক্রু ছিলো বলে প্রাথমিক খবরে জানা গেছে।

তাৎক্ষণিকভাবে তদুর্ঘটনার কারণ জানা যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে এটি বিধ্বস্ত হয়েছে।

এই দুর্ঘটনা নিয়ে এখনও কোনো মন্তব্য করেনি ইউক্রেন সরকার বা বিমান সংস্থাটি।

এমন এক সময় তেহরানে বিমানটি বিধ্বস্ত হলো যখন ইরাকের দুটি মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে ভয়াবহ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ইরান। বুধবার সকালে চালঅনো ওই হামলায় আল আসাদ ঘাঁটির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছে ইরানি সংবাদ মাধ্যম পার্স টুডে। তবে ওই ক্ষেপণাস্ত্র হামলার সঙ্গে তেহরানের এই বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার কোনো সম্পর্ক নাই বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

কমেন্ট করুন