1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. nagorikit@gmail.com : ভোলাহাটচিত্র : ভোলাহাটচিত্র
  3. bholahatchitro@gmail.com : ভোলাহাটচিত্র : ভোলাহাটচিত্র
আজ শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০৩:২০ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন, বিনা প্রয়োজনে বাইরে বের হওয়া থেকে বিরত থাকুন।

৩ ভূয়া সাংবাদিক ১ ভূয়া ম্যাজিষ্ট্রেটকে গণধোলাই

  • আপডেট করা হয়েছে মঙ্গলবার, ৪ মে, ২০২১
  • ২৮৫ বার পড়া হয়েছে

নাদিম হোসেনঃ রাজশহী জেলার গোদাগাড়ীতে নাহার নামের এক বেকারির দোকানে গিয়ে চাঁদাবাজির সময় ৩জন ভূয়া সাংবাদিক ও ১ জন ভূয়া ম্যাজিস্ট্রেটকে গণ ধোলাই দিয়েছে স্থানীয়রা। সোমবার বেলা সাড়ে ১১ টায় গোদাগাড়ির কামার পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা বলছেন, যখন তাদের কাছে ম্যাজিস্ট্রেটের আইডি কার্ড চাইলাম। তখন একতালে বলে উঠলো, “আমরা ৩ জন সাংবাদিক“।আর ওই যে নাসির স্যার সে একজন ম্যাজিস্ট্রেট।

র‌্যাবের ম্যাজিস্ট্রেট বানিয়ে ওই বেকারির দোকানে অভিযান পরিচালনা করতে ঢুকেন তারা। আর বাকি ভুয়া সাংবাদিকরা হলো চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার হরিপুর গ্রামের আলমগীর হোসেন, শুভো,গোদাগাড়ির সাফিয়ান স্বাধিন এবং হরিপুর গ্রামের ভুয়া ম্যাজিষ্ট্রেট নাসির।

এ সময় তারা ওই বেকারির মালিক থেকে ১০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন।তারা বার বার ভোক্তা অধিকারের নাম বলা-বলি করছিলো। এক পর্যায়ে বেকারির মালকের সন্দেহ হলে ভাবতে থাকে এরা তো নিজেই ম্যাজিস্ট্রেট, তো বারবার ভোক্তা- অধিকারকে দিয়ে কেন অভিযান করাবে? ওই ৪ জন মিলে ওই বেকারির মালিকে হুমকি দিচ্ছিলো, এটা করবো, জরিমানা করবো, জেল দিবো, অস্বাস্থ্যকর খাবার ইত্যাদি বলে ভয়ভিতি দেখাচ্ছিলো। এমতাবস্তায় বেকারির মালিকের সন্দেহ হলেই বেকারির মালিক উচ্চস্বরে বলে নাসির কী আসলেই ম্যাজিস্ট্রেট।

বেকারির মালিকের সেই প্রশ্নের উত্তরে তারা ভয়ে ভিতস্ত হয়ে উত্তর দিলো, তো আপনার কী মনে হয় আমি ম্যাজিষ্ট্রেট না। এক পর্যায়ে তাদের আইডি কার্ড দেখতে চাইলে,২জন সাংবাদিকের আইডি কার্ড দেখায় আর বাকী ২জন ভুয়া ম্যাজিষ্ট্রেট ও তার সহযোগী আইডি কার্ড দেখতে ব্যার্থ হলে বেকারির মালিক এলাকার সাধারণ জনগনকে ডেকে তাদের হাতে সোপর্দ্য করেন। উচ্ছুক জনতা এক পর্যায়ে ওই ৪ জনকে দড়ি দিয়ে বাধেঁ।এরপর তাদেরকে বেধড়ক মারতে থাকে।

ওই বেকারির মালিক আব্দুল মতিন (বিপু) জানান, অমি বাড়িতে ছিলাম।আমার ছোট ভাই বললো ভাইয়া ,কয়েকজন সাংবাদিক এসেছে, আর একজন ম্যাজিস্ট্রেট এসেছে।যে ম্যাজিস্ট্রেট ছিলেন তার নাম নাসির।এলাকায় যখন লোকজন জমায়েত হয়েছে তখন ওই ম্যাজিস্ট্রেটসহ সবাই পালতে যাচ্ছিলো। পরে ওই ম্যাজিস্ট্রেটের ভাই এসে মুচলেকা দিয়ে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়।
উল্লেখ্য যে গতবছরে ২২ জানায়ারী ২০২০ইং তারিখে গোদগাড়ীতে টমোটর আড়তে গিয়ে চাঁদা বাজির সময় ভুয়া আলমগির ও ভুয়া সাফিয়ান স্বাধীনকে গণ ধোলাই দিয়েছিলো স্থানীয়রা।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি (Nagorikit.com)