1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. nagorikit@gmail.com : ভোলাহাটচিত্র : ভোলাহাটচিত্র
  3. bholahatchitro@gmail.com : ভোলাহাটচিত্র : ভোলাহাটচিত্র
আজ- বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০২:৪৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন, বিনা প্রয়োজনে বাইরে বের হওয়া থেকে বিরত থাকুন।

শিবগঞ্জে ইউপি সদস্য ও এক গৃহবধুর পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

  • আপডেট করা হয়েছে বুধবার, ৭ অক্টোবর, ২০২০
  • ১১৬ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ঃশিবগঞ্জে পূর্ব শত্রুতর জের ধরে এক ইউপি সদস্য ও এক গৃহবধুর সাথে মারপিটের ঘটনা ঘটেছে এবং উভয়পক্ষ থানা ও আদালতে পাল্টাপাল্টি মামলা করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নে লছমনপুর গ্রামে। গত ৩০-০৯-২০২খ্রি. তারিখে বিনোদপুর ইউনিয়নের লছমানপুর গ্রামরে আজিজুল হকের স্ত্রী নাসরিনের স্বাক্ষরিত আদালতে একটি মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ইউপি নির্বাচনের সময় নাসরিনের নিকট হতে বিনোদপুর ইউনিয়নের ৪ নঙ ওয়ার্ড সদস্য ইদুল হক ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা ধার নিয়ে পরবর্তীতে ৩০ হাজার শোধ করে। বাকী টাকা চাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ৩০-০৯-২০২০ খ্রি. তারিখে ইউপি সদস্য ইদুল হক, তার স্ত্রী সালমা বেগমসহ ৭/৮জন নাগরিন ও তার স্বামীকে বেধড়ক মারপিট করে আহত করে ও নাসরিনের গলায় থাকা ১০ আনা ওজনের সোনার মালা/চেইন ছিনিয়ে ন্য়ে। পরে স্থানীয় লোকজন এসে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় নাসরিন আরো বলেন, যে ইদুল মেম্বার আমার পাওনা টাকা নিয়ে দীর্ঘ ৪বছর থেকে ছিনিমিনি খেলছে। টাকা চাইলেই অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। এমনকি ঈদুল হক ও তার স্ত্রী বিভিন্ন ভাবে হুমকী দেয়।

এ ব্যাপারে ঈদুল হক নাসরিনের অভিযোগ অস্বীকর করে বলেন, সামনে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র আমার বড় ধরনের ক্ষতি করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ষড়যন্ত্র করছে। আসলে নাগরিন আমার নিকট কোন টাকা পাবে না। আমি ও আমার লোকজন তাকে ও তার স্বামীকে কোন মারপিট করিনি। এমনকি কোন গালিগালাজও করিনি। বরং নাসরিন তার লোকজন দিয়ে আমার স্ত্রীর ওপর হামলা করেছে।

একই তারিখে বিনোদপুর ইউপি সদস্য ঈদুল হকের স্বাক্ষরিত শিবগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ৩০ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় নাসরিনের বাড়ির সামন দিয়ে ঈদুল হকের স্ত্রী সালমা বেগম হেঁটে যাবার সময় নাসরিন ও তার স্বামী আজিজুল হক পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র দিয়েূঅতর্কিত হামলা চালিয়ে সালমাকে গুরুতর আহত করে। আমি পরে সংবাদ পেয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় আমার স্ত্রীকে উদ্ধার করে চিকিৎসা করায়। ঈদুল হকের অভিযোগ অভিযোগ অস্বীকার করে নাসরিন বলেন, আমি তার বিরুদ্ধে কোন ষড়যন্ত্র করিনি। আমি আমার পাওনা টাকা চাইলে সে আমার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে এবং গালিগালাজ করে।

এ ব্যাপারে উভয় অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা শিবগঞ্জ থানার এস আই নুরুল ইসলাম বলেন, তাদের দুজনের অবিযোগ পেয়েছি। তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে আইননুগ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

থ্রি ষ্টার গ্রুপের অনলাইন নিউজ পোর্টাল

ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি (Nagorikit.com)