1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. nagorikit@gmail.com : ভোলাহাটচিত্র : ভোলাহাটচিত্র
  3. bholahatchitro@gmail.com : ভোলাহাটচিত্র : ভোলাহাটচিত্র
আজ রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০১:১৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন, বিনা প্রয়োজনে বাইরে বের হওয়া থেকে বিরত থাকুন।

ভোলাহাটে মুকুলের ভারে ভারক্রান্ত আম গাছ

  • আপডেট করা হয়েছে বুধবার, ১০ মার্চ, ২০২১
  • ১৮৫ বার পড়া হয়েছে
ভোলাহাটে মুকুলে ভেঙ্গে পড়ছে আম গাছ।

স্টাফ রিপোর্টারঃ আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ভোলাহাট উপজেলা। মুকুলেই ভেঙ্গে পড়ছে আম গাছ। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা গত বছরের চেয়ে অনেক বেশী হবে। তবে হতাশায় আছেন আম ব্যবসায়ী ও আম বাগান মালিকেরা। প্রচুর মুকুল আসলেও কেনা-বেচা হচ্ছে না আম বাগান। ভোলাহাট উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, ভোলাহাট উপজেলায় মোট ২৪ হাজার ৭৫ বিঘা জমিতে আম বাগান রয়েছে। এ বছর আমের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২৫ হাজার ৬৮০ মেট্রিক টন যা গত বছরের থেকে বেশী। গত বছর উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিলো ২১ হাজার ৫৬০ মেট্রিক টন। এ দিকে উপজেলার বিভিন্ন আম বাগান ঘুরে দেখা গেছে মুকুলের ভারেই আম গাছগুলো ভেঙ্গে পড়ার উপক্রোম। এ সময় স্থানীয়রা জানান এ বছর আম বাগানে গাছে গাছে প্রচুর মুকুল আসলেও প্রকৃতিক দূর্যোগ আসলে আমের ভাগ্যে বিপর্য ঘটতে পারে। এদিকে প্রকৃতিক দূর্যোগ না আসলেও আম গাছগুলো অতিরিক্ত আমের ভারে ভেঙ্গে পড়ার আশংকা রয়েছে। বেশ কয়েক জন আম ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, অন্যান্য বছর এ সময় এক একটা আম বাগান একাধীক হাত বদল হয় আম ব্যবসায়ীদের সাথে। কিন্তু এ বছর আম বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীরা বলেন, এ বছর আম বাগান বেচা-কেনা হচ্ছে না। কারণ হিসেবে বলেন, গত বছর আম থেকে তেমন লাভের মুখ দেখা যায়নি। এ বছর কি হয় সে চিন্তা করছে আম ব্যবসায়ীরা। আম ব্যবসায়ী সেলিম রেজা, ফারুক, রফিকুল ইসলামসহ অনেকেই জানান, এ বছর আম গাছে প্রচুর মুকুল এসছে। প্রাকৃতিক দূযোর্গ না হলে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা অনেক গুন বেড়ে যাবে। তারা বলেন, রোগে আক্রান্ত আম গাছও বাদ পড়েনি মুকুল থেকে। উপজেলার একমাত্র আম বিক্রয় কেন্দ্র আম ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক চুটু জানান, এ বছর আম গাছে প্রচুর মুকুল এসে। এরি মধ্যে আম বাগান সুরক্ষায় বিভিন্ন পরামর্শমূলক প্রচার-প্রচারনা অব্যহত রেখেছি। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে গত বছরের চেয়ে অনেব বেশী আম উৎপাদন হবে বলে জানান। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান বলেন, এ বছর ৯০ শতাংশ গাছে আমের মুকুল এসেছে। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে গত বছরের চেয়ে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা বেড়ে যাবে বলে জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি (Nagorikit.com)