1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. nagorikit@gmail.com : ভোলাহাটচিত্র : ভোলাহাটচিত্র
  3. bholahatchitro@gmail.com : ভোলাহাটচিত্র : ভোলাহাটচিত্র
আজ রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৭:১০ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন, বিনা প্রয়োজনে বাইরে বের হওয়া থেকে বিরত থাকুন।

ভোলাহাটে এক বৃষ্টিতে দু’কোটি টাকার ক্ষতি

  • আপডেট করা হয়েছে শুক্রবার, ২৮ মে, ২০২১
  • ৯৪৪ বার পড়া হয়েছে
এ ভাবে ভেংগে গেছে অসংখ্য রাস্তা। মহানন্দা নদীর বেঁড়িবাঁধে ভাঙ্গন। হুমকির মুখে বজরাটেক পোষ্ট অফিস ভবন। ভেসে যাওয়া খাল-বিলের মাছ ধরছে এলাকার মানুষ।

স্টাফ রিপোর্টার: ভোলাহাটে এক বৃষ্টিতেই দু’কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্র থেকে প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে। গত ২৭ মে বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার পর প্রবল বৃষ্টি হয়ে চলে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত। এত খাল-বিল ভরে যায়। ফলে রাস্তা-ঘাট, নদীর পাড় ভাঙ্গন, কাঁচা বাড়ী ভাঙ্গন,পুকুর থেকে মাছ ভেসে যাওয়া থেকে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়।
ভোলাহাট সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ ইয়াজদানী জর্জ জানান, রাস্তা-ঘাট, কাঁচা বাড়ী ভেঙ্গে গেছে। মাছ ভেসে গেছে। এতে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে সরকারী-বেসরকারী ভাবে প্রায় ৩০/৪০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
গোহালবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল কাদের জানান, মহানন্দা নদীর ঘাট, বজরাটেক পোষ্ট অফিস ভবন, কাঁচা বাড়ী ভেঙ্গে গেছে, টিন উড়িয়ে নিয়েছে, মাছ ভেসে গেছে। সব মিলিয়ে প্রায় ৫০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হবে বলে ধারনা করা যাচ্ছে।
দলদলী ইউনিয়ন পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল বারী জানান, পোল্লাডাংগায় মহানন্দা নদীর বেঁড়ী বাঁধ, মুশরীভূজায় ড্রাম, আদাতলায় সড়ক ও জনপথের রাস্তা ভেঙ্গে গেছে, বেশ কিছু কাঁচা বাড়ী ভেঙ্গে গেছে, কৃষি ফসলে বেশ কিছু নষ্ট হয়েছে, মাছ ভেসে গেছে। এতে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে প্রায় ১ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।
জামবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মসফিকুল ইসলাম তারা জানান, কয়েকটা বাড়ী কাঁচা বাড়ী ভেঙ্গে গেছে, মাছ ভেসে গেছে, রাস্তা-ঘাট ভেঙ্গেছে। প্রায় ২০/২৫ লাখ টাকার ক্ষতির আশংকা করছি।


উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ কাউসার আলম সরকার জানান, সড়ক ও জনপথ, এলজিইডি, কৃষি, মৎস্য, পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ বিভিন্ন বিভাগের প্রায় প্রাথমিক ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ২ কোটি টাকা আশংকা করছেন। তিনি বলেন, আমরা ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শণ করছি। এছাড়া প্রত্যেকটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানদের কাছ থেকে আলাদা ভাবে পেলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যাবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(অঃচাঃ) মোঃ শেখ মেহেদী ইসলাম জানান, আমি সরজমিন গিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা চিহিৃত করছি। উপজেলার সব চেয়ে বেশী ক্ষতি হয়েছে দলদলী ইউনিয়নের। ক্ষতির পরিমাণ এখনও বলা মুশকিল। যাঁচাই-বাছাই করে বলা যাবে ক্ষতির পরিমাণ। তবে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
এদিকে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্দিষ্ট ভোলাহাট অফিস থাকলেও অফিসের কার্যক্রম চলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সদরে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হলেও তাদের নজর থাকে না ভোলাহাটে। ফলে এলাকাবাসি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
ডিজাইনঃ নাগরিক আইটি (Nagorikit.com)